skip to Main Content
রবিবার, ২৭ রবিউল-আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী,১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং
বিকাল ৫:৩৫
নোটিশবোর্ড
জামিয়ার শিক্ষাবিভাগসমূহ

রওযাতুস সাহবান

শিশুদের জন্য মাদরাসার তা’লীমী সময়সূচি (সকাল ৮.০০টা থেকে রাত ৮.০০টা পর্যন্ত) পরিপূর্ণভাবে রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়ে। তাই ৫ বছর থেকে ৬ বছরের শিক্ষার্থীদের জন্য মকতব বিভাগে ‘রওযাতুস সাহবান’ নামে একটি শাখা চালু করা হয়েছে।

মকতব বিভাগ

মকতব বিভাগে নুরানি পদ্ধতির পাঠদানের অনুসরণ করা হয়। তবে জেনারেল বিষয়ে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার (বাংলাদেশ) পাঠ্যবই পড়ানো হয়। এ বিভাগে সর্বনিম্ন ৬-৭ বছর বয়সী ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়।

নাযেরা বিভাগ

নুরানি পদ্ধতির অনুসরণে নাযেরা বিভােগ পাঠদানের অনুসরণ করা হয়। জেনারেল বিষয়ে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার (বাংলাদেশ) পাঠ্যবই পড়ানো হয়। এ বিভাগে সর্বনিম্ন ৬-৮ বছর বয়সী ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়।

হিফয বিভাগ

হিফয বিভাগের শিক্ষার্থীরা নাযেরা সমাপনীসহ মোট ৪ বছরে হিফয সম্পন্নের পাশাপাশি জেনারেল বিষয়ে ৪র্থ শ্রেণি শেষ করবে এবং ‘বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের’ অধীনে হিফয পরীক্ষা দিবে। হিফযের জন্য বর্ণিত সিলেবাস বৎসর কৈন্দ্রিক নয়; বরং মেধার উপর নির্ভরশীল। তবে এ বিভাগের সর্বোচ্চ মেয়াদ ৪ বছর।

কিতাব বিভাগ

এ বিভাগ মোট ৫টি স্তরে বিভক্ত : ১. আলমারহাতুল ইবতিদাইয়্যাহ ২. আলমারহাতুল মুতাওয়াসসিতা ৩. আলমারহাতুস সানাবিয়া ৪. আলমারহালাতুল 'আলিয়া ৫. আলমারহালাতুল আলামিয়া

আত-তাখাসসুস ফিল ফিকহি ওয়াল ইফতা

দাওরায়ে হাদীস সম্পন্নকারী শিক্ষার্থীদের জন্য ফিকহ ও ফতওয়া বিষয়ক গবেষণামূলক উচ্চতর শিক্ষা ‘আত-তাখাসসুস ফিল ফিকহি ওয়াল ইফতা’র কোর্স রয়েছে। শিক্ষার্থীদের মানব জীবনে উদ্ভূত সকল সমস্যার শরয়ি সমাধান দেওয়ার জন্য যোগ্য মুফতী হিসাবে গড়ে তোলা এ বিভাগের মূল উদ্দেশ্য।
বালক ও বালিকা শাখা

বালক শাখার পাশাপাশি জামিয়ার বর্তমান ভবনে বালিকা শাখাও রয়েছে। শিক্ষাপদ্ধতির ক্ষেত্রে মকতব, নাযেরা ও হিফয বিভাগের বর্ণিত সিলেবাস বালক-বালিকা উভয় শাখার ক্ষেত্রে একই রকম। কিতাব বিভাগের ক্ষেত্রে বালিকা শাখা ‘বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ’ কর্তৃক বালিকা শাখার জন্য প্রণীত সিলেবাস অনুসরণ করে। সে হিসাবে কিতাব বিভাগের পাঠ্যসিলেবাস ১ম বর্ষ থেকে শুরু করে দাওরায়ে হাদীস পর্যন্ত মোট ৮ বৎসরে শেষ হয় এবং নির্ধারিত জামাতগুলোতে বেফাকের অধীনে পরীক্ষা দেওয়ানো হয়।
বর্তমানে বালিকা শাখায় নাযেরা ও হিফয বিভাগসহ কিতাব বিভাগ দাওরায়ে হাদীস পর্যন্ত রয়েছে।

দারুল ইফতা (ফতওয়া বিভাগ)

মানব জীবনে সফলতা অর্জনের একমাত্র উপায় শরীয়ত তথা কুরআন-হাদীসের আলোকে জীবন গঠন করা। নীতি-নৈতিকতাহীন জীবনের কোনো মূল্য নেই। প্রত্যেক মুসলমানের জন্য তাই শরীয়তের বিধান জেনে সে মতে জীবন পরিচালনা করা আবশ্যক। ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের প্রতিটি অঙ্গনে শরীয়তের হেদায়াত মেনে চলা অপরিহার্য কর্তব্য। দৈনন্দিন জীবনের এ সকল বিষয়ের শরয়ী বিধান জানার জন্য দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রয়েছে অনেক আদর্শ ‘ফতওয়া বিভাগ’। জামিয়া সাহবানিয়া দারুল উলূম তারই ধারাবাহিকতায় ‘ফতওয়া বিভাগ’ (দারুল ইফতা) চালু করেছে। এ বিভাগে ইবাদত, ব্যবসা-বাণিজ্য, শেয়ার মার্কেট ও অর্থ-সম্পদের মীরাস বণ্টনসহ দৈনন্দিন জীবনের অন্যান্য সমস্যার শরীয়ত মোতাবেক সমাধান মৌখিক ও লিখিত জবাব আকারে পেশ করা হয়।

হযরত মাওলানা মুফতী মুহাম্মাদ নেয়ামতুল্লাহ সাহেবের বয়ান
জুমার বয়ান

জুমার বয়ান

হযরত মাওলানা মুফতী নেয়ামতুল্লাহ সাহেব (দা.বা.) এর সাপ্তাহিক জুমার বয়ান।

দারসে কুরআন

দারসে কুরআন

হযরত মাওলানা মুফতী নেয়ামতুল্লাহ সাহেব (দা.বা.) এর সাপ্তাহিক দারসে কুরআন (প্রতি সোমবার)।

ইসলাহী মজলিস

ইসলাহী মজলিস

হযরত মাওলানা মুফতী নেয়ামতুল্লাহ সাহেব (দা.বা.) এর সাপ্তাহিক (প্রতি শনিবার) ইসলাহী বয়ান।

Back To Top